ব্যবসার আইডিয়া

সাপ্লাই ব্যবসা কি এবং সাপ্লাই ব্যবসার সেরা দশটি আইডিয়া ২০২২

সাপ্লাই ব্যবসা কি এবং সাপ্লাই ব্যবসার সেরা দশটি আইডিয়া ২০২২

সাপ্লাই ব্যবসা কে অনেকে সরবরাহকারী ব্যবসা হিসেবে চিনে থাকেন। এই ব্যবসা করে খুবই দ্রুত লাভবান হওয়া যায়।সাপ্লাই ব্যবসাকে অনেকটা স্থায়ী ব্যবসা বলা হয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে বেশ কয়েকটি সাপ্লাই ব্যবসা রয়েছে যে ব্যবসা গুলো করার মাধ্যমে ভালো টাকা উপার্জন করা সম্ভব। আজকের পোস্টে আমি আপনাদের সাথে সাপ্লাই ব্যবসা কি এবং সাপ্লাই ব্যবসার সেরা কয়েকটি আইডিয়া সম্পর্কে আলোচনা করবো।তাহলে চলুন দেরী না করে শুরু করা যাক:-

সাপ্লাই ব্যবসা কি 

 

ধরুন আপনার এলাকায় কোন ব্রিজের কাজ চলছে।ব্রিজ তৈরি করতে গিয়ে যাবতীয় যত ধরনের মালামাল লাগছে আপনি তাদেরকে সরবরাহ করছেন।এক্ষেত্রে আপনি হচ্ছেন তাদের সাপ্লায়ার। তারা আপনাকে মালামাল সাপ্লাই করার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রেরন করবে। আর এটাই হচ্ছে সাপ্লাই ব্যবসা।সাপ্লাই ব্যবসার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এই ব্যবসার মাধ্যমে খুবই দ্রুততম সময়ের মধ্যে ভালো রেজাল্ট পাওয়া যায়। 

সাপ্লাই ব্যবসার সেরা দশটি আইডিয়া

যারা সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করতে চান তারা চাইলে বর্তমান সময়ের সেরা দশটি ব্যবসার মধ্যে থেকে যেকোনো একটি ব্যবসা কে সিলেক্ট করে নিতে পারেন। এই ব্যবসা গুলো খুবই দারুণ এবং এখান থেকে ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। 

১.ফুড সাপ্লাই ব্যবসা

 

আমাদের দেশে কোন সাপ্লাই ব্যবসাটা ধীরে ধীরে অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। অনলাইনে এবং অফলাইনে বিভিন্ন পন্থায় এখন একে অপরের কাছে ফুড সাপ্লাই করছে।

যারা ফুড সাপ্লাই ব্যবসাটি করতে চান তাদেরকে অবশ্যই শহর অঞ্চলে করতে হবে।কেননা শহর অঞ্চলের মানুষ কাজের প্রতি এতটাই ব্যস্ত থাকেন যে তারা নিজের খাবার  তৈরি করে খাওয়ার মতো পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় পায়না।

যার কারনে তারা কারো কাছে ফুড সাপ্লাই নিয়ে থাকেন। তাই আপনি যদি বেশ কয়েকটি এরকম লোক দেখতে পারেন এবং তাদের জন্য ফুড সাপ্লাই দিতে থাকেন তাহলে ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। শহরাঞ্চলে অনেকে এই পদ্ধতিতে ব্যবসা করে থাকেন।

 

২.ফাস্ট ফুড ব্যবসা

 

বর্তমান সময়ে ফাস্ট ফুডের দোকানের সংখ্যা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর ভবিষ্যতেও ফাস্টফুডের দোকান অধিকাংশই বাড়বে।ফাস্টফুডের দোকানে বিভিন্ন ধরনের পানীয় এবং অনেক ধরনের ছোটখাট আইটেমের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

তাই আপনি চাইলে এই সকল পণ্যগুলো  নিজেই উৎপাদন শুরু করতে পারেন। এর জন্য আপনি চাইলে বেকারি দিয়ে এই সকল ফাস্টফুডের প্রোডাক্ট উৎপাদন করতে পারেন। আর পানীয় বাইরে থেকে পাইকারি দামে কিনে এনে সেগুলো ফাস্টফুডের দোকানে সরবরাহ করতে পারেন।

এভাবে আপনি যত বেশি দোকানদারের সাথে ভাল সম্পর্ক বজায় রাখতে পারবেন তত আপনার মাল বিক্রির হার বাড়বে। তাই যদি সাপ্লাই ব্যবসা করতে চান তাহলে এই পদ্ধতিতে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

৩.রেস্টুরেন্টে সবজি সাপ্লাই 

 

রেস্টুরেন্ট চালানোর জন্য অনেক ধরনের সবজির প্রয়োজন হয়। আর এই সকল রেস্টুরেন্টগুলো সবজি কারো না কারো কাছ থেকে সরবরাহ করে থাকে।তাই আপনি চাইলে এই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে রেস্টুরেন্টের সবজি সাপ্লাই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন।

এই ক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি রেস্টুরেন্টের মালিক অথবা রেস্টুরেন্টের ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করতে হবে এবং তাকে বলতে হবে আমি আপনাদের রেস্টুরেন্টে জন্য ভালো সবজি সরবরাহ করতে পারবো।

তারা যদি আপনার প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায় তাহলে আপনি নিয়মিত সেখানে সবজি সাপ্লাই করতে পারবেন। এভাবে আপনি যত বেশি রেস্টুরেন্টে সবজি সাপ্লাই করতে পারবেন আপনার উপার্জনের পরিমাণটা ততবেশি বৃদ্ধি পাবে। তাই রেস্টুরেন্টে সবজি সাপ্লাই ব্যবসাটি চাইলে শুরু করতে পারেন।

৪.গার্মেন্টস ব্যবসা 

আপনারা সকলেই জানেন একটি গার্মেন্টস চালানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের মালামাল বা যন্ত্রপাতির প্রয়োজন হয়ে থাকে।তারা সুই,সুতা থেকে শুরু করে অনেক ধরনের উপকরণ নিয়ে থাকে।

এই সকল মালামাল গুলো তারা কোন না কোন সাপ্লাইয়ারের কাছ থেকে নিয়ে থাকে।তাই আপনি যদি এরকম কিছু গার্মেন্টসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে কথা বলে তাদের কাছে এর সকল প্রয়োজনীয় উপকরণগুলো সাপ্লাই দেন তাহলে ভালো উপার্জন করতে পারবেন। 

তাছাড়া আপনি চাইলে সরাসরি এইসকল উপকরণগুলোর উৎপাদন করতে পারেন।তাহলে আপনার লাভবান হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আরও অনেকাংশে বেড়ে যাবে। 

৫.ফুল সাপ্লাই ব্যবসা 

 

কোন উৎসব অনুষ্ঠান এলে ফুলের প্রয়োজন পড়ে।আমরা তখন ফুলের সন্ধানে ফুলের দোকানে অথবা ফুলের বাগান গুলোতে ভিড় করে থাকি।তারপরে আমরা সেখান থেকে ফুল সংগ্রহ করি।

তাহলে অবশ্যই বুঝতে পারছেন এই সকল ফুলের দোকান গুলোতে কোনো-না-কোনো সাপ্লায়ার ফুলের সাপ্লাই দিয়ে থাকেন। আপনি নিজেই যদি ফুলের সাপ্লাই দিতে পারেন এই সকল দোকানগুলোতে তাহলে আপনার উপার্জন মোটামুটি ভালই হবে।

আপনি চাইলে প্রথমে একটি ফুলের বাগান তৈরী করে সেখান থেকে ফুল সরাসরি দোকানে সাপ্লাই করতে পারেন অথবা যেখানে ফুলের দামকম সেখান থেকে ফুল পাইকারি দামে এনে সাপ্লাই করতে পারেন।

৬.Gift Box সাপ্লাই ব্যবসা 

 

আমাদের ছোট-বড় অনেক ধরনের কোম্পানি রয়েছে। প্রতি বছরই এই সকল কোম্পানিগুলো বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। এই অনুষ্ঠানগুলোতে পুরস্কার হিসেবে অনেককে শো পিচ বা গিফট বক্স দেওয়া হয়ে থাকে।

তাই আপনাকে পাইকারি হোলসেল মার্কেট থেকে এই সকল গিফট বক্স গুলো কম দামে কিনে আনতে হবে এবং সেগুলো তাদেরকে সাপ্লাই দিতে হবে। এই পদ্ধতিতে ব্যবসা করে আপনারা অনায়াসেই ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

৭.জুতার সাপ্লাই ব্যবসা

 

বাংলাদেশের অনেক স্থানে জুতো তৈরি করার বড় বড় কারখানা রয়েছে।এই সকল কারখানাগুলোর থেকে ইউনিক সকল জুতা সংগ্রহ করে এনে আপনাকে নিজের এলাকার মার্কেটে সাপ্লাই দিতে হবে।

আপনি যদি কম দামে ভালো মাল দোকানদারকে দিতে পারেন তাহলে অবশ্যই তারা আপনার দেওয়া মাল নিবে। ধীরে ধীরে আপনার অনেকটা পরিচিতি তৈরি হয়ে যাবে।

তখন আপনার কাস্টমার সংখ্যা অনেকাংশে বেড়ে যাবে।পরবর্তীতে যদি আপনি জুতা তৈরীর কারখানা দিতে চান তাহলে দিতে পারেন।বর্তমানে যত supply bussiness রয়েছে তাদের মধ্যে জুতার সাপ্লাইয়ের ব্যবসা টি খুবই লাভজনক একটি ব্যবসা। 

৮.ফলের ব্যবসা

 

ফলের ব্যবসায় লাভ কেমন এই সম্পর্কে হয়তো কমবেশি সকলেই জানেন।আপনাকে এই ক্ষেত্রে ফলের দোকান দিতে হবে না।মার্কেটে যে সকল ফলের দোকান গুলো দেখতে পাবেন ওই দোকানগুলো কে আপনার টার্গেট করতে হবে এবং তাদেরকে ফল সাপ্লাই দিতে হবে।

তবে আপনাকে যে সকল স্থানে ফলের দাম খুবই কম সেখান থেকে পাইকারি দামে ফল কিনে আনতে হবে। তারপর এই সকল দোকানগুলোতে সরবরাহ করতে হবে। 

আপনি যত বেশি দোকানদারকে যত বেশি মাল সাপ্লাই দিতে পারবেন আপনার উপার্জনের পরিমাণটাও এক্ষেত্রে তেমন হবে।বর্তমানে এমন অনেক সাপ্লাইয়ার আছে যারা শুধুমাত্র ফলের সাপ্লাই ব্যবসা করে মাসে লক্ষাধিক টাকার বেশি উপার্জন করে থাকেন।

৯.দেশি হাঁস মুরগী সাপ্লাই ব্যবসা 

 

সাধারণত এই ব্যবসাটা শহরে খুবই লাভজনক একটি ব্যবসা। শহর অঞ্চলের অনেকে দেশি হাঁস মুরগি পালন করেন না তাই যারা এইসকল হাঁস মুরগির মাংস খেতে চান তখন তারা বাজার থেকে কিনে নিয়ে আসেন।

আপনি চাইলে গ্রাম অঞ্চলে একটি দেশি মুরগি হাঁসের খামার দিয়ে সেখান থেকে হাঁস-মুরগি শহরে সাপ্লাই দিতে পারেন। অথবা নিজে কোন একটি স্থান থেকে এগুলো বিক্রি করতে পারেন।

এই ব্যবসায় প্রচুর পরিমাণে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব যেটা আপনি অন্যান্য ব্যবসার মাধ্যমে পারবেন না।অনেকে এই ব্যবসা করার মাধ্যমে নিজেকে একজন সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত করতে পেরেছেন এমন নজির কম নেই।

১০.অনলাইনে কোর্স বিক্রির ব্যবসা

 

বর্তমানে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান শুধুমাত্র অফলাইনে সীমাবদ্ধ নেই এখন এটা অনলাইনে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। আপনি যদি নির্দিষ্ট কোন বিষয়ে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে সেই বিষয় সম্পর্কিত কোর্স তৈরি করে সেগুলো মার্কেটপ্লেসে সাপ্লাই দিতে পারেন।

এই সকল কোর্সগুলো যদি আপনার ক্লায়েন্টের জন্য যুগোপযোগী হয় তাহলে তারা কোর্সটি  নেবে এবং আপনাকে টাকা দিবে।এইভাবে আপনি যত বেশি বিক্রি করতে পারবেন তত বেশি বাড়বে। তাই যদি supply bussiness করতে চান তাহলে এই ব্যবসা। 

আমাদের শেষ কথা 

আশা করি আজকের পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে সাপ্লাই ব্যবসা কি এবং সাপ্লাই ব্যবসা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে আপনারা সঠিক উত্তর পেয়েছেন। তাছাড়া আমি আপনাদের সাথে সেরা কয়েকটি সাপ্লাই ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কেও আজকে আলোচনা করেছি।এই বিষয়ে যদি আর কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে সরাসরি কমেন্ট করে জানাবেন। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/educarer/public_html/wp-includes/functions.php on line 5373