জন্ম নিবন্ধন ও আইডি কার্ড

জন্ম নিবন্ধন আবেদন বাতিল করুন এখন ঘরে বসেই

জন্ম নিবন্ধন আমাদের জন্য খুবই মূল্যবান ডকুমেন্ট হলেও অনেক সময় জন্ম নিবন্ধন বাতিল করার প্রয়োজন পড়ে। অর্থাৎ এমন অনেকেই রয়েছেন যাদের একাধিক জন্ম নিবন্ধন রয়েছে তারা চাইছে জন্ম নিবন্ধন বাতিল করতে। রেজিস্টার জেনারেল কার্যালয়ের নতুন নিয়ম অনুযায়ী কোন ব্যক্তি বা কারো যদি একাধিক জন্ম নিবন্ধন থেকে থাকে তাহলে শুধুমাত্র একটি জন্ম নিবন্ধন রেখে বাকি জন্ম নিবন্ধন গুলো বাতিল করতে পারবেন। 

 

অর্থাৎ কোন কারনে যদি কারো দুটি বা তিনটি জন্ম নিবন্ধন সনদ হয়ে যাই তাহলে তারা আবার নতুন করে জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন করে উক্ত জন্ম নিবন্ধন গুলো বাতিল করতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন না করলে একাধিক জন্ম নিবন্ধন পরবর্তীতে বিভিন্ন ঝামেলা সৃষ্টির কারণ হতে পারে।

 

একাধিক জন্ম নিবন্ধন থাকলে যেসব সমস্যায় পড়তে পারেন

 

জন্ম নিবন্ধন হচ্ছে একজন ব্যক্তির নাগরিকত্বের প্রথম প্রমাণ পত্র। তাই জন্ম নিবন্ধন প্রত্যেক ব্যক্তির কাছেই খুবই জরুরী। কিন্তু এই জন্ম নিবন্ধন যখন অনেক হয়ে যায় বা জন্ম নিবন্ধনের নকল যখন তিন থেকে চারটি হয়ে যায়। তখন প্রশাসনিক বিভিন্ন কাজে নানান ধরনের জটিলতা দেখা দিতে পারে অনেক জন্ম নিবন্ধন থাকার কারণে। তাই অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন একাধিক থেকে থাকলে বাতিল আবেদন করার মাধ্যমে একটি অরজিনাল জন্ম নিবন্ধন আপনারা করতে পারবেন। 

 

জন্ম নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম 

 

অতীতে হাতে লিখে জন্ম নিবন্ধন করা হতো। যার কারণে অনেকের হয়তো তিন থেকে চারটি জন্ম নিবন্ধন হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া অনেক সময় দেখা যায় জন্ম নিবন্ধন হারিয়ে গেলে আবার নতুন করে অনেকে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে থাকেন। কিন্তু এখন প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য একটি জন্ম নিবন্ধন রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তাই যাদের একাধিক জন্ম নিবন্ধন ইতিমধ্যে হয়ে গিয়েছে তারা অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন করবেন। 

 

জন্ম নিবন্ধন বাতিল না করলে একাধিক জন্ম নিবন্ধনের কারণে আপনার পরিচয় প্রদানে সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাছাড়া সরকারি সেবা থেকে বঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই এক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন বাতিল করা উচিত হবে। জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন করার জন্য আপনাদেরকে নিবন্ধক কার্যালয়ে জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে। 

 

জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন পত্রের সাথে জন্ম নিবন্ধন সনদের কপি, জন্ম নিবন্ধন বাতিলের কারণ, ও কেন বাতিল করছেন তার ব্যাখ্যা দিয়ে একটি বিবৃতি প্রদান করতে হবে। তারপরে জন্মনিবন্ধন বাতিল করার আবেদন পত্রটি নিবন্ধক কার্যালয়ের কর্মকর্তা নতুন ইউনিট ইউজার আইডির মাধ্যমে অনলাইনে ডুপলিকেট যে জন্মনিবন্ধনগুলো রয়েছে তার তদন্ত করবেন। 

 

তারপরে নিবন্ধন কর্মকর্তা জন্ম নিবন্ধন বাতিলের জন্য নির্ধারিত ফি নিবে। এক্ষেত্রে যদি একাধিক জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রমাণিত হয়ে থাকে তাহলে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জন্ম নিবন্ধন গুলো খুব সহজেই বাতিল করা যাবে। 

 

অনেকে অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন আবেদন বাতিল করার নিয়ম খুঁজে থাকেন কিন্তু রেজিস্টার জেনারেল কার্যালয়ের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন বিভাগের ওয়েবসাইটে এখনো পর্যন্ত এই নিয়ে কোন সিস্টেম চালু হয়নি। তাই জন্ম নিবন্ধন বাতিল আবেদন করার জন্য সশরীরে নিবন্ধক কার্যালয়ের অফিসে সশরীরে উপস্থিত হওয়া লাগবে। 

 

জন্ম নিবন্ধন সনদ বাতিলের আবেদন ফি কত টাকা।  জন্ম নিবন্ধন আবেদন বাতিল করতে কত টাকা লাগে 

 

একাধিক জন্ম নিবন্ধন যাদের হয়ে গিয়েছে ইতিপূর্বে তারা অনেকেই জন্ম নিবন্ধন সনদ বাতিল করার জন্য আবেদন করে থাকেন।যার কারণে আবেদন ফি বর্তমানে কত টাকা নেওয়া হচ্ছে এই বিষয়ে তারা অনেকেই জানতে চান। জন্ম নিবন্ধন বিধিমালা ২০১৮ মার্চ ৮ এর ১৫ এর দুই ধারায় নির্ধারিত ফি দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বাতিল বা আবেদন করার কথা বলা হলেও জন্ম নিবন্ধন সনদ বাতিল করতে কত টাকা লাগে এই বিষয়ে কিছু বলা হয়নি। তাই এক্ষেত্রে ফির পরিমাণটা নির্ধারণ করা হবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদনের ওপর ভিত্তি করে। 

 

উপসংহার: এখন প্রত্যেকেরই জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা ধীরে ধীরে বাধ্যতামূলক হয়ে উঠছে। গুরুত্বপূর্ণ কোন ডকুমেন্ট বা অন্যান্য বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজের জন্য জন্ম নিবন্ধন এখন যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তাই কারো যদি একাধিক জন্ম নিবন্ধন থেকে থাকে তাহলে খুব দ্রুতই উপরের নিয়মে জন্ম নিবন্ধন বাতিল করার আবেদন করতে পারেন। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/educarer/public_html/wp-includes/functions.php on line 5373