ব্যবসার আইডিয়া

ডিমের ব্যবসা শুরু করার লাভজনক আইডিয়া

ডিমের ব্যবসা শুরু করার লাভজনক আইডিয়া

বর্তমান সময়ে অনেকেই ডিমের ব্যবসা করে থাকেন। ডিমের ব্যবসা করার মাধ্যমে অনেক ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা নিজেকে স্বাবলম্বী করে তুলতে পেরেছেন।ডিমের ব্যবসা কোন ধরনের প্রশিক্ষণ ছাড়াই শুরু করা যায় এবং এই ব্যবসার মাধ্যমে ভালো অর্থ লাভ করা যায়।

 

যত সময় যাচ্ছে ডিমের ব্যবসা তত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।তরুণ উদ্যোক্তা থেকে শুরু করে সকলেই ডিমের ব্যবসার দিকে এখন ঝুঁকছে। আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব ডিমের ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন এবং ডিমের ব্যবসায় লাভ কেমন হতে পারে এই সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে। তাহলে চলুন দেরী না করে শুরু করা যাকঃ-

ডিমের ব্যবসা শুরু করার আইডিয়া 

 

যারা ডিমের ব্যবসা শুরু করতে চান তারা চাইলে এই ব্যবসাটিকে দুই ভাবে করতে পারেন। ডিমের পাইকারি ব্যবসা এবং ডিমের দোকান দিয়ে ব্যবসা। দুই পদ্ধতিতেই ব্যবসা করা অনেক সহজ এবং খুব কম সময়ের মধ্যে লাভবান হওয়া সম্ভম।

ডিমের পাইকারি ব্যবসা  

 

যারা ডিমের পাইকারি ব্যবসা শুরু করতে চান তারা চাইলে ডিমের পাইকারি বাজার গুলো থেকে কম দামে ডিম সংগ্রহ করে নিয়ে এসে সেগুলো এলাকার ছোট দোকানগুলোতে বিক্রি করতে পারেন।আপনি চাইলে একটি ভ্যান নিয়ে সেই ভ্যানে করে এই সকল ডিমগুলো পাইকারি দামে বিক্রি করে বেড়াতে পারেন ।বর্তমানে অনেক ডিম ব্যবসায়ী এই পদ্ধতিতে ব্যবসা করে থাকেন এবং এখান থেকে দৈনিক ২-৩ হাজার টাকা অনায়াসেই ইনকাম করে থাকেন।তাই যদি ডিমের ব্যবসা করবেন বলে ভেবে থাকেন তাহলে ডিমের পাইকারি ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন।

 

ডিমের দোকান দিয়ে ব্যবসা 

 

ডিমের দোকান দিয়ে ব্যবসা করাটাও বর্তমান সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে খুবই লাভজনক। এই পদ্ধতিতে আপনাকে একটি দোকান দিতে হবে যেখানে বিভিন্ন ধরনের ডিম থাকবে। আপনি এখানে হাঁসের ডিম, মুরগির ডিম, কোয়েল পাখির ডিম রাখতে পারেন।

 

আপনার দোকানটি একবার পরিচিতি পেয়ে গেলে কাস্টমার ধীরে ধীরে আসতে থাকবে তখন তাদের কাছে আপনি এই সকল ডিমগুলো খুচরা বিক্রি করতে পারেন। কিছুদিনের মধ্যেই আপনার দোকানের কাস্টমার সংখ্যা অনেকাংশে বেড়ে যাবে এবং আপনার লাভের পরিমাণ বেড়ে যাবে।তাই ভালো একটি স্থান থেকে ডিমের দোকান দিয়ে ব্যবসা শুরু করে ফেলুন আর এখান থেকে প্রতিদিনই লাভ করুন।

 

ডিমের পাইকারি বাজার কোথায় /আজকের ডিমের পাইকারি বাজার 

 

ডিমের ব্যবসা করতে হলে আপনার অবশ্যই ডিমের পাইকারি বাজার সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। কেননা এই পাইকারি বাজার থেকে ডিম অল্প দামে কিনে নিয়েছি আপনারা নিজের দোকানে বিক্রি করতে পারবেন। তাই ডিমের পাইকারি দাম কত বা পাইকারি বাজার সম্পর্কে ধারণা রাখা জরুরী।

ডিমের পাইকারি বাজার ঢাকা

 

ঢাকা শহরে তেজগাঁও ডিমের বাজার একসময় ডিমের দাম নিয়ন্ত্রণ করত। বর্তমানে তেজগাঁও এর পাশাপাশি মিরপুর এবং উত্তরায় ডিমের বাজার রয়েছে। বর্তমান সময়ে এই সকল বাজারগুলোতে ডিমের দাম একই হয়ে থাকে।তাই যারা পাইকারিভাবে ডিম কিনতে চান তারা চাইলে ঢাকা তেজগাঁও বা ঢাকা মিরপুর থেকে ডিম কিনতে পারেন।

ডিমের বাজার চট্টগ্রাম

 

চট্টগ্রামে ডিমের পাইকারি বাজার রয়েছে। যারা ডিমের ব্যবসা করতে চান তারা চট্টগ্রাম থেকে পাইকারিভাবে ডিম কিনে নিয়ে আসতে পারেন। চট্টগ্রামের পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজারে আপনারা কম দামে পাইকারি ভাবে ডিম কিনে নিয়ে আসতে পারবেন এবং সেগুলো নিজেদের দোকানে বিক্রি করতে পারবেন।

ডিমের ব্যবসা করতে পুঁজি লাগে 

 

যারা ডিমের ব্যবসা শুরু করতে চান তারা চাইলে ৫০ হাজার টাকা পুজি নিয়ে খুব সহজেই ডিমের ব্যবসাটি শুরু করতে পারবেন। আর যারা দোকান দিয়ে ডিমের ব্যবসা করতে চান তারা এক লাখ টাকা নিয়ে এই ব্যবসায় বসতে পারেন। খুবই দ্রুত সময়ের মধ্যে আপনারা এ ব্যবসা থেকে ভালো কিছু করতে পারবেন।

ডিমের ব্যবসায় লাভ কেমন 

 

ডিমের ব্যবসায় লাভ কেমন হবে সেটা আপনার উপর নির্ভর করে। অর্থাৎ আপনি এই ব্যবসায় কত টাকা মূলধন খাটাচ্ছেন এবং কোন ভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছেন সেটার উপর। আপনি যদি ভ্যানগাড়িতে করে ডিমের পাইকারি ব্যবসা করে থাকেন তাহলে প্রতিদিন এখান থেকে ২ হাজার টাকার বেশি লাভ করা সম্ভব। আর যদি ডিমের দোকান দিয়ে ব্যবসা করে থাকেন তাহলে অনায়াসেই এখান থেকে মাসে ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা লাভ করা সম্ভব। তাহলে আপনারা অবশ্যই বুঝতে পারছেন যে ডিমের ব্যবসায় লাভ কেমন হতে পারে। 

 

আমাদের শেষ কথা 

 

আশা করি আজকের আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে ডিমের ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন এবং ডিমের বাজার সম্পর্কে সঠিক ধারণা পেয়েছেন।তারপরেও কোনো বিষয় সম্পর্কে যদি কোনো ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারেন। ধন্যবাদ। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button