ভিসা খবর

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার উপায়

সুইজারল্যান্ডে রয়েছে বিশ্বের সেরা কিছু বিশ্ববিদ্যালয়। যার কারণে অনেকেই বিভিন্ন দেশ থেকে সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনার জন্য এসে থাকেন। সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনার জন্য সুইজারল্যান্ড টুরিস্ট ভিসা নিতে হয়। সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার নিয়ম ও সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে এই নিয়ে অনেকেরই প্রশ্ন রয়েছে। আজকের পোস্টে এই বিষয়গুলো নিয়েই আলোচনা করা হবে। তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক:-

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসায় কেন যাবেন।সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসায় পড়াশোনা করার সুবিধা 

 

সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসায় পড়াশোনা করার অসংখ্য সুবিধা রয়েছে। যার কারণে সারা বিশ্ব থেকে প্রচুর সংখ্যক ছাত্রছাত্রী সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে পড়াশোনা করতে এসে থাকেন। যেমন:

 

১.সুইজারল্যান্ড উচ্চমানের শিক্ষা প্রদান করে থাকে ও শিক্ষার্থীদের সেরা একাডেমিক অভিজ্ঞতা প্রদান করে থাকে। 

২.সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনার খরচ অনেক সাশ্রয় যার কারণে অনেকেই সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসায় গিয়ে থাকেন। 

৩.সুইজারল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়গুলি সারা বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে অন্যতম যার কারণে এখান থেকে ভালো শিক্ষা পাওয়া যায়। 

৪.সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনার পাশাপাশি কাজের সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়। যার মাধ্যমে পড়াশোনার খরচ খুব সহজেই মেটানো যায়।

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার উপায় 

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার জন্য দূতাবাসের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।দূতাবাস থেকে একটি আবেদন ফরম দিবে সেটা পূরণ করে ও ফি প্রদান করে সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করা যায়। তাছাড়া কেউ যদি চাই তাহলে অনলাইনের মাধ্যমে সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা ফরম ফিলাপ করে আবেদন করতে পারেন। 

 

ফর্মটি পূরণ করা হয়ে গেলে সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার জন্য ৬০ ইউরো ফি প্রদান করতে হবে।তবে বর্তমানে ফির পরিমাণটা কিছু  বাড়তে পারে তাই সরাসরি দূতাবাস থেকে জেনে নিতে পারেন।আবেদন জমা দেওয়া হয়ে গেলে আপনার দেশের সুইচ প্রতিনিধি আবেদনটি সুইজারল্যান্ডের উপযুক্ত ক্যান্টোনাল মাইগ্রেশন অফিসে জমা দেবেন।তারপরে সুইজারল্যান্ডের কনস্যুলট জেনারেল আপনাকে ভিসা দেওয়ার আগে আবেদনটি পর্যালোচনা করবে ও তারপর অনুমোদিত হবে। সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পেতে ৬ থেকে ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পেতে কি কি ডকুমেন্ট লাগে 

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা নিতে হলে প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্ট জমা দিতে হবে। এই সমস্ত ডকুমেন্টগুলি ছাড়া কোনভাবেই সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পাবেন না। নিচে সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় যে সকল কাগজপত্র লাগে তা উল্লেখ করা হলো:-

 

➡️ আপনার একটি বৈধ পাসপোর্ট লাগবে। 

➡️ চার কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি প্রয়োজন হবে। 

➡️ নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান থেকে ভর্তির ছবি লাগবে। 

➡️ স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন ফরমটি পূরণ হয়েছে কিনা সেটা নিশ্চিত করতে হবে, দীর্ঘমেয়াদি সুইস ডি ভিসার জন্য আবেদন পত্রের তিনটি সম্পূর্ণ কপি প্রদান করতে হবে। 

➡️ ভাষা দক্ষতা প্রুভ লাগবে। 

➡️ মেডিকেল রিপোর্ট প্রয়োজন হবে। 

➡️ সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনা করার কারণ উল্লেখ করে একটি চিঠি লাগবে। 

➡️ পড়াশোনা শেষ হয়ে গেলে সুইজারল্যান্ড থেকে চলে যাবেন এর স্বাক্ষরিত চিঠি লাগবে।

 

যারা সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার মাধ্যমে যেতে চান তাদের সাধারণত এই সকল ডকুমেন্টগুলো লেগে থাকে। তারপরেও যদি বর্তমানে অতিরিক্ত কিছু ডকুমেন্ট লাগে সেগুলো আপনারা দূতাবাসের মাধ্যমে জেনে নিতে পারবেন। 

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা যেতে কত টাকা লাগে। সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসার খরচ 

 

সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে এই নিয়ে অনেকেরই জানার আগ্রহ রয়েছে। সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসায় পড়াশোনা করতে হলে অনেক টাকা খরচ হয়ে থাকে। সুইজারল্যান্ডের স্টুডেন্ট ভিসার আবেদন ফি ৬০ থেকে ৭০ ইউরো নেয়া হয়ে থাকে ও সেখানে ভিসা প্রসেসিংসহ যাবতীয় খরচ মিলিয়ে দুই থেকে তিন বছরের ভিসা করলে ১৪ থেকে ২০ লাখ টাকার মতো খরচ হয়ে থাকে। এই খরচ সাধারণত সেখানে থেকে পড়াশোনা সহ যাবতীয় আনুষঙ্গিক খরচ। তবে ব্যক্তি ভেবে খরচের পরিমাণটা কম-বেশি হতে পারে তাই এই বিষয়ে সঠিক ধারণা দেওয়া কোন ভাবেই সম্ভব নয়। তাছাড়া সুইজারল্যান্ডে স্টুডেন্ট ভিসাই যেতে হলে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকের ব্যাংক একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণে টাকা থাকতে হবে। কেননা সুইজারল্যান্ডে পড়াশোনা করার খরচ মেটানোর জন্য ছাত্রদের অভিভাবক যে যোগ্য সেটা প্রমাণ দিতে হবে। 

 

শেষ কথা, আশা করি ইতিমধ্যে সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার উপায় ও সুইজারল্যান্ড স্টুডেন্ট ভিসা খরচ কত এই বিষয়ে মোটামুটি ধারণা পেয়ে গিয়েছেন। তারপরেও যদি এই নিয়ে কোন ধরনের প্রশ্ন থাকে বা পোস্টটি পড়ে কোন বিষয় সম্পর্কে বুঝতে কোন ধরনের অসুবিধা হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button