Ad powered by Sohan
Ad powered by Sohan

সৌদি আরবের ফ্রি ভিসার দাম কত। সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় যেতে কত টাকা লাগে

সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় যেতে অনেকে আগ্রহী। কিন্তু সৌদি আরব ফ্রি ভিসা সম্পর্কে ধারণা খুব কম মানুষেরই রয়েছে। সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য কয়েক ধরনের ভিসা পাওয়া যায়। তার মধ্যে সৌদি আরব ফ্রী ভিসা অন্যতম। অনেক রিক্রুটিং এজেন্সি রয়েছে যারা সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় লোক নিয়ে যায়। সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় গিয়ে ভালো আয় করা সম্ভব। আজকের পোস্টে সৌদি আরব ফ্রি ভিসা পাওয়ার উপায় ও সৌদি আরব ফ্রি ভিসার দাম কত এই নিয়ে জানানোর চেষ্টা করা হবে। তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক:-

Ad powered by Sohan

 

সৌদি আরব ফ্রি ভিসা পাওয়ার উপায় 

 

সৌদি আরবে ফ্রি ভিসা বলে কোন ভিসা এখনো চালু হয়নি। তবে কিছু এজেন্সি বা দালাল বাংলাদেশীদের কে ভিসার নামে অবৈধ ভিসা প্রদান করে থাকে। এই সকল এজেন্সি বা দালালরা কোন পরিতক্ত বাড়ি বা কোম্পানির নামে কর্মীদেরকে ফ্রি ভিসা প্রদান করে থাকেন।এই ক্ষেত্রে যারা সৌদি আরবে ফ্রী ভিসায় যাই তারা কোন একজন কাফিলের আন্ডারে থাকে। তার আধীনে সৌদি আরবের প্রবাসী কর্মীদের কাজ করতে হয়। যে কাফিলের আন্ডারে সৌদি আরব যাই তাকে প্রতিবছর নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দেওয়া লাগে। 

Ad powered by Sohan

 

তাছাড়া যারা ফ্রি ভিসাতে সৌদি আরব যায় তাদেরকে প্রতি বছর আকামা করার জন্য অর্থ প্রদান করতে হয়। তিন মাস,  ছয় মাস, নয় মাস ও বারো মাসের জন্য এই সকল ব্যক্তিরা আকামা করতে পারেন। অর্থাৎ আকামা করলে তারা কোন ধরনের ঝামেলা বা ভোগান্তি ছাড়াই সৌদি আরবে কাজ করতে পারবেন। যারা ফ্রি হিসাবে সৌদি আরব যায় আকামা হচ্ছে তাদের বৈধতা। আকামা ছাড়া যদি সৌদি আরবে কাজ করে থাকেন তাহলে অবৈধ হিসাবে গণ্য হবেন এবং যেকোনো মুহূর্তে জেল জরিমানা হতে পারে। 

 

Ad powered by Sohan

সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় গিয়ে ইচ্ছা অনুযায়ী যে কোন জায়গায় কাজ করা যায়। অর্থাৎ এখানে ব্যক্তিকে কোন কোম্পানি বা কোন ব্যক্তির অধীনে কাজ করা লাগে না। ব্যক্তি চাইলে নিজের দক্ষতা অনুযায়ী যেকোন স্থানে কাজের জন্য আবেদন করতে পারেন ও কাজ করতে পারেন।তবে সৌদি আরব ফ্রি ভিসা করতে অনেক টাকা খরচ হয়ে থাকে। 

 

সৌদি আরব ফ্রি ভিসার দাম কত 

 

Ad powered by Sohan

কোন রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে যদি সৌদি আরব ফ্রি  ভিসা করে থাকেন তাহলে ৩ লক্ষ্য ৫০ হাজার টাকা থেকে চার লক্ষ টাকার মতো খরচ আসতে পারে। তবে ফ্রি ভিসা নিয়ে সৌদি আরবে অবস্থান করার পর আপনি যে কাফিলের আন্ডারে কাজ করবেন তাকে বাড়তি অর্থ প্রদান করা লাগে। তাছাড়া প্রতিবছর আকামার জন্য ১১০০ রিয়াল খরচ করতে হবে যা বাংলাদেশী টাকায় হিসেব করলে ত্রিশ হাজার টাকার উপরে। 

 

আকামা তিন মাস ছয় মাস ও এক বছরের মেয়াদ করা যায়। সৌদি আরবে ফ্রি ভিসা নিয়ে গিয়ে ভিসার মেয়াদ পাবেন তিন মাস এবং এক বছরের জন্য আকামা করলে মোট ১৫ মাস সেখানে কোন ধরনের ঝামেলা বা ভোগান্তি ছাড়াই আপনারা কাজ করতে পারবেন। তারপরে ১৫ মাস শেষ হয়ে গেলে যে কাফিলের আন্ডারে কাজ করতেন তাকে কিছু অর্থ প্রদান করতে হবে এবং আবার নতুন করে এক বছরের আকামা করতে হবে তাহলে আপনারা ফ্রি ভিসাতে আবার সৌদিতে কাজ করতে পারবেন। 

 

সৌদি আরবে ফ্রি ভিসাতে যদি দক্ষতা সম্পন্ন কর্মীরা না যাই তাহলে এই ভিসাটি তেমন লাভজনক হয় না। তাই যাদের কোন কাজের বিষয়ে ভালো দক্ষতা রয়েছে তারাই শুধুমাত্র সৌদি আরবে ফ্রি ভিসায় যেতে পারেন। তাহলে আকামা ও কাফিল খরচ ওঠার পাশাপাশি ভালো পরিমাণ আয় করা সম্ভব হবে। 

 

শেষ কথা, আশা করি ইতিমধ্যে সৌদি আরব ফ্রি ভিসা পাওয়ার উপায় ও সৌদি আরব ফ্রি ভিসার  দাম কত এই বিষয়ে মোটামুটি ধারণা পেয়ে গিয়েছেন। তারপরেও যদি এই নিয়ে কোন প্রশ্ন থাকে বা পোস্টটি পড়ে কোন বিষয় সম্পর্কে বুঝতে কোন অসুবিধা হয়ে থাকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ। 

Check Also

দুবাই কাজের জন্য যেতে কত বছর বয়স লাগে

দুবাই হচ্ছে আরব আমিরাতের একটি শহর। বাংলাদেশ সহ আরো অনেক দেশ থেকে বিভিন্ন কাজের উদ্দেশ্যে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।