জন্ম নিবন্ধন ও আইডি কার্ড

১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা আশা করি আপনারা সবাই ভালই আছেন।আজকের পোস্টে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব ১৭ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার উপায় সম্পর্কে। তাই যাদের জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিটের এবং জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান তারা আজকের পোষ্টটি অবশ্যই পড়বেন।তাহলে চলুন দেরী না করে জেনে নেওয়া যাকঃ-

১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই জানতে পারবেন যে আপনার জন্ম নিবন্ধনে কোন ধরনের সমস্যা বা ভুল রয়েছে কিনা। যার জন্য অনেক ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার প্রয়োজন পড়ে। 

জন্ম নিবন্ধনে যদি কোনো সমস্যা থেকে থাকে তাহলে খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার মাধ্যমেই পরবর্তীতে সেটি ঠিক করা যায়। নিচে আমি আপনাদেরকে ধাপে ধাপে দেখাবো কিভাবে খুব সহজে ঘরে বসে আপনার 17 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবেনঃ-

➡️যারা অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান তাদেরকে সরাসরি https://everify.bdris.gov.bd/ বাংলাদেশ সরকারের অনলাইন তথ্য ব্যবস্থা ওয়েবসাইটে চলে যেতে হবে। উক্ত লিংকটি ব্যবহার করে আপনারা সরাসরি ওয়েবসাইটে চলে যেতে পারবেন। 

➡️ওয়েবসাইটটিতে আসার পর আপনাদের সামনে এরকম একটি পেজ আসবে।

এখান থেকে উপরের ঘরে জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি অর্থাৎ আপনার ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিতে হবে এবং নিচের ঘরে আপনার জন্ম তারিখ উল্লেখ করতে হবে। 

➡️এবার নিচের সংখ্যা মেলানো বা ক্যাপচা পূরণ করার মত একটি অপশন দেখতে পাবেন। সঠিকভাবে ক্যাপচার উত্তর দিয়ে তারপরে আপনাদেরকে সার্চ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

➡️ সার্চ বাটনে ক্লিক করার পরপরই আপনার জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কিত তথ্য বা আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে রয়েছে কিনা আপনি দেখতে পারবেন। এখান থেকে জন্ম নিবন্ধনের সব তথ্য সঠিক রয়েছে কিনা সেটিও খুব সহজে দেখা যাবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা কেন গুরুত্বপূর্ণ 

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা প্রত্যেকটি নাগরিকের জন্য অপরিহার্য। ধরুন আপনি কোথাও চাকরির জন্য গিয়েছেন এবং সেখানে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার সহ আরও অনেক ধরনের ডকুমেন্ট দরকার হবে। সেই সময় যদি আপনার জন্ম নিবন্ধনে কোন ধরনের ভুল থাকে তাহলে আপনার আবেদনটি তারা গৃহীত করবে না। যার কারনে আপনার চাকরিটা হারিয়ে ফেলতে পারেন।

কিন্তু আপনি যদি আগে থেকে জন্ম নিবন্ধনের এই ভুলের সমস্যা টা ধরতে পারতেন এবং সংশোধন করতে পারতেন তাহলে এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হতো না। তাহলে অবশ্যই বুঝতে পারছেন যে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা কতটা জরুরি।

শেষ কথা,আশা করি আজকের পোস্টটি যারা পড়েছেন তারা ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই কিভাবে করবেন সেই সম্পর্কে সঠিক তথ্য পেয়েছেন।তার পরেও যদি কোন বিষয় সম্পর্কে বুঝতে কোন ধরনের অসুবিধা হয়ে থাকে তাহলে আমাদেরকে সরাসরি কমেন্ট করে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ। 

সম্পর্কিত আর্টিকেল

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/educarer/public_html/wp-includes/functions.php on line 5373